রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৫:০৬ অপরাহ্ন

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :
সাপ্তাহিক চট্টবাণী পত্রিকায় চট্টগ্রাম মহানগর সহ বিভাগের আওতাধীন সকল জেলা ও উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা ছবিসহ বায়োডাটা ইমেইল করুন chattabani@gmail.com এই ঠিকানায়।

নগরীতে বিনা নোটিশে প্রবীণ মু্ক্তিযোদ্ধার ব্যক্তি মালিকানাধীন স্থাপনা ভাঙচুর করলো চসিক




চট্টবাণী: আলহাজ্ব এম মাহবুবুল আলম, পিতা- মরহুম হাজী তফছির আহমদ সওদাগর, সাং- মাহববু ভিলা, হাজী তফছির আহমদ সওদাগরের বাড়ী, ওমর আলী মাতাব্বর রোড, চান্দগাঁও, চট্টগ্রাম। গত ১৫.০৫.১৯৭০ ইংরেজি তারিখে রেজিষ্ট্রার্ড কবলামুলে খরিদকৃত ও দখলকৃত সম্পত্তি হয়। যা অদ্যাবধি পর্যন্ত খাজনা পরিশোধ করা আছে। এমনকি বি.এস জরিপের ৩১০৫ নং খতিয়ান অদ্যাবধি পর্যন্ত শুদ্ধভাবে আলহাজ্ব এম. মাহাবুবুল আলমের নামে জরিপ লিপি আছে। উল্লেখ্য আলহাজ্ব এম মাহাবুবুল আলম একজন বীর মু্ক্তিযোদ্ধা ও ৬নং পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এমনকি তার ছোট ছেলে লায়ন এম আশরাফুল আলম ৬নং পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান ওয়ার্ড কাউন্সিলর।



সোমবার ২৭ জুলাই ২০২০ সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা আক্তার উপস্থিত হয়ে আলহাজ্ব এম মাহাবুবুল আলমের স্বত্বদখলীয় জায়গার দীর্ঘদিনের স্থাপনা বিনা নোটিশে অন্যায় ও বিধিবহির্ভূত ভেঙ্গে দেন। যা সিটি কর্পোরেশনের মালিকানাধীন সম্পত্তি নয়। আলহাজ্ব এম মাহাবুবুল আলমের ব্যক্তি মালিকানাধীন সম্পত্তি ইতিপূর্বে আলহাজ্ব এম মাহাবুবুল আলমের বিরুদ্ধে স্থানীয় বাকলিয়া থানায় কয়েকজন ভূমিদস্যু প্রকৃতির লোক অভিযোগ করিলে থানা কর্তৃপক্ষকে আলহাজ্ব এম মাহাবুবুল আলমের দাবীর সমর্থনে ডকুমেন্টপত্র পেশ করলে দাবীর সত্যতা পাওয়ার পর স্থানীয় থানায় বৈঠক করা থেকে বিরত থেকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে ম্যানেজ করে স্থাপনা ভাঙচুর করে ধ্বংসলীলা চালানো হয়।



একজন বীর মু্ক্তিযোদ্ধা ও দলের ত্যাগী নেতা হওয়া সত্ত্বেও তার ব্যক্তি মালিকানাধীন সম্পত্তি দলীয় মেয়র কর্তৃক ভেঙে দেয়ার সংবাদ পাওয়ার পর বীর মু্ক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম মাহাবুবুল আলম গুরুতর অসুস্থ হয়ে শংকটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।



অভিযান পরিচালনাকারী ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে যোগাযোগ করলে ওনি মেয়র ও স্টেট অফিসারের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন এবং কেন স্থাপনা ভেঙ্গেছে জানতে চাইলে ব্রিজ করবেন বলে জানান। ৩০০ গজের মধ্যে ৩টি ব্রিজ থাকা সত্ত্বেও ব্যক্তি মালিকানাধীন সম্পত্তির উপর ব্রিজ কেন? জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর দেননি। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন...













>


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

 
















© All rights reserved © 2019 Chattabani
Design & Developed BY N Host BD